851
page-template,page-template-full_width,page-template-full_width-php,page,page-id-851,page-child,parent-pageid-646,stockholm-core-1.0.0,select-theme-ver-5.1.5,ajax_fade,page_not_loaded,wpb-js-composer js-comp-ver-5.5.5,vc_responsive

হাবিলদার আবু তালেব

জন্ম – ২০ আগস্ট, ১৯৪২

“রসিকতায় আর সাহসিকতায় লেখা হয়েছে প্রতিবাদ লিপি!”

ছোটবেলা থেকেই সাহসিকতা এবং রসিকতার জন্য পরিচিত ছিলেন শহীদ হাবিলদার আবু তালেব। কুমিল্লা জেলার বলাখাল গ্রামে জন্ম নেয়া সাহসী ছেলেটি জড়িয়ে পড়েন সাংবাদিকতার সাথে। তাঁর প্রতিবাদের মাধ্যম হয়ে ওঠে কলম। পাকিস্তানিদের অনৈতিক নিয়ম কানুনকে বিদ্রুপ করে বেশ কিছু লেখা লিখেছিলেন তিনি। যা ছিলো একটা আঘাত। এজন্য তাঁকে নানা রকম প্রশ্নেরও সম্মুখীন হতে হয়েছিলো।

পাকিস্তান প্রতিষ্ঠার কয়েক বছর পরই তিনি ইপিআর বাহিনীতে যোগদান করেন। ২৫ মার্চ গণহত্যার সূচনায় তিনি তাঁর বাহিনীর সদস্যদের নিয়ে বান্দরবন সীমান্ত থেকে চলে আসেন কালুরঘাটে এবং প্রতিরোধ যুদ্ধে যোগ দেন। সেখানকার যুদ্ধে হানাদার বাহিনী পেরে না উঠলে বিমান বাহিনীর সাহায্যে আক্রমণ করে ইপিআর বাহিনীকে। বাঙালিরাও পাল্টা আক্রমণ করে। চলতে থাকে তুমুল যুদ্ধ। গোলাগুলিতে গোটা এলাকা তখন প্রকম্পিত।

যুদ্ধটা তখন দানা বাঁধছিলো, আবু তালেব সম্মুখ যুদ্ধে। বেশ কিছু বুলেট এসে লাগে তাঁর গায়ে। তবুও দমে যাননি। আহত অবস্থায় যুদ্ধ চালিয়ে যান এবং একসময় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন। দিনটি ছিলো ২৯শে মার্চ, ১৯৭১।