Martyred Intellectuals | সাংবাদিক সিরাজউদ্দীন হোসেন
871
page-template,page-template-full_width,page-template-full_width-php,page,page-id-871,page-child,parent-pageid-646,ajax_fade,page_not_loaded,,select-theme-ver-4.6,wpb-js-composer js-comp-ver-5.5.5,vc_responsive
Journalist Sirajuddin Hossain

সাংবাদিক সিরাজউদ্দীন হোসেন

জন্ম – ১৯২৯

“মুক্তির চেতনায় বলিষ্ঠ একজন সাংবাদিক”

সাংবাদিক সিরাজউদ্দীন হোসেনের জন্ম ১৯২৯ সালের মার্চ মাসে। তিনি ছিলেন বাংলাদেশে অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের জনক। কলকাতার ইসলামিয়া কলেজে বি.এ. পড়া শুরু করেন। কলেজ জীবনে বই কেনার মতো আর্থিক স্বচ্ছলতা তাঁর ছিল না। অন্যের বই আর শিক্ষকদের লেকচারের উপর ভিত্তি করে নোট তৈরি করেই তিনি পরীক্ষার প্রস্তুতি নিতেন।

কর্মজীবনে সিরাজউদ্দীন হোসেন ইত্তেফাক-এর নির্বাহী সম্পাদক ছিলেন। তাঁর ধ্যান-ধারণার সবটুকু জুড়ে ছিল দেশ আর দেশের মানুষ। যুদ্ধের ডামাডোলে সবাই যখন প্রাণের ভয়ে ভীত, সেসময়টাতেও তিনি পত্রিকায় মুক্তিযুদ্ধের কথা লিখতেন। পাকিস্তান আমলে যে কয়জন সাংবাদিকের বলিষ্ঠ নেতৃত্বে সাংবাদিকরা ঐক্যবদ্ধ হয়েছিলেন এবং বাঙালি জাতীয়তাবাদী আন্দোলনকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করেছিলেন, সিরাজউদ্দীন হোসেন ছিলেন তাঁদের মধ্যে অন্যতম। নিজের সব সামর্থ্য দিয়ে তিনি সাহায্য করতেন মুক্তিযোদ্ধাদের। ১৯৭৬ সালে শহীদ সিরাজউদ্দীন হোসেন একুশে পদক পান। ২০১০ সালে সিরাজউদ্দীন হোসেনকে মানিক মিয়া স্বর্ণপদক (মরণোত্তর) দেয়া হয়।

১৯৭১ সালের ১০ ডিসেম্বর পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী ও আলবদর বাহিনীর সদস্যরা তাঁকে তাঁর রাজধানীর চামেলীবাগের বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায়। কনকনে শীতের রাতে তাঁকে পাঞ্জাবি পরারও সুযোগ দেয়নি ঘাতকরা। শুধু গেঞ্জি লুঙ্গি পরা অবস্থাতেই তাঁকে ধরে নিয়ে যাওয়া হয়। এরপর তাঁকে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি। সাংবাদিক সিরাজউদ্দীন হোসেন হয়তো হারিয়ে গিয়েছেন, কিন্তু তাঁর মতাদর্শ ধরে রেখে এগিয়ে যাচ্ছি আমরা।