Martyred Intellectuals | ডা. আব্দুল আলীম চৌধুরী
888
page-template,page-template-full_width,page-template-full_width-php,page,page-id-888,page-child,parent-pageid-646,ajax_fade,page_not_loaded,,select-theme-ver-4.6,wpb-js-composer js-comp-ver-5.5.5,vc_responsive

ডা. আব্দুল আলীম চৌধুরী

জন্ম – ১৯২৮

“চোখভরা স্বাধীনতা, বুকভরা বাংলাদেশ যাঁর প্রতিদিন”

ডা. আব্দুল আলীম চৌধুরী কিশোরগঞ্জ জেলার খয়েরপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। কিশোরগঞ্জ হাই স্কুল থেকে ১৯৫৪ সালে ম্যাট্রিক এবং কলকাতা ইসলামিয়া কলেজ থেকে ১৯৪৭ সালে আইএসসি পাশ করে ঢাকা মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন।

ছাত্রজীবন থেকেই তিনি বাম রাজনীতিতে যুক্ত ছিলেন এবং ৫২-র ভাষা আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেছিলেন। ডা. আব্দুল আলীম চৌধুরী ১৯৫৫ সালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস ডিগ্রি সম্পন্ন করেন।

পেশাগত জীবনে আবদুল আলীম চৌধুরী ১৯৬১ থেকে ১৯৬৩ পর্যন্ত লন্ডনের সেন্ট জেমস হাসপাতালের রেজিস্ট্রার ছিলেন। এরপর দেশে ফিরে ১৯৬৩ সালের শেষের দিকে তিনি মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে যোগ দেন প্রধান চক্ষু চিকিৎসক হিসেবে। ঢাকার পোস্ট গ্রাজুয়েট মেডিসিন অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের সহযোগী অধ্যাপক ছিলেন তিনি ১৯৬৭ সালে। ঢাকা মেডিকেল কলেজের চক্ষু বিভাগে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে যোগ দেন ১৯৬৮ সালে। এরপর কিছুদিন ছিলেন রাজশাহী মেডিকেল কলেজের চক্ষু বিভাগে। তাঁর সর্বশেষ কর্মস্থল ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ।

১৯৭১ সালের জুলাই মাসের মাঝামাঝি একদিন  ডাঃ আবদুল আলীমের পাশের বাসার মতিন নামে এক ভদ্রলোক মৌলানা আবদুল মান্নানকে ডাঃ আলীমের বাসায় নিয়ে আসেন। অনুনয় করে তাদের থাকার বন্দোবস্ত করা হলো বাসায় নিচেই। এই মৌলানা আবদুল মান্নানের ইন্ধনেই আল-বদর বাহিনী ১৫ ডিসেম্বর বিকেল সাড়ে চারটায় ‘হ্যান্ডস আপ’ করা অবস্থায় বাসা থেকে ধরে নিয়ে যায়। ১৮ ডিসেম্বর রায়ের বাজারের ইটখোলার বধ্যভূমিতে ডা. আব্দুল আলীমের ছোট ভাই হাফিজ আরও অনেক বুদ্ধিজীবীদের সাথে খুঁজে পান তাঁর ভাইয়ের মরদেহ।

আমাদের চেতনায় জেগে থাকবেন অনন্তকাল ডাঃ আব্দুল আলীম চৌধুরী।