Martyred Intellectuals | গোবিন্দ চন্দ্র দেব
758
page-template,page-template-full_width,page-template-full_width-php,page,page-id-758,page-child,parent-pageid-646,ajax_fade,page_not_loaded,,select-theme-ver-4.6,wpb-js-composer js-comp-ver-5.5.5,vc_responsive

গোবিন্দ চন্দ্র দেব

জন্ম – ১৯০৭

“রক্তের কালিতে যিনি লিখে গেলেন মানবতার গান”

গোবিন্দ চন্দ্র দেব, ড. জিসি দেব নামে পরিচিত। চিরঞ্জীব এ মনীষী একই সাথে ছিলেন একজন বরেণ্য শিক্ষক, নিবেদিতপ্রাণ মানবপ্রেমিক, দার্শনিক এবং একজন দেবতুল্য পিতা। ১৯২৫ সালে মাধ্যমিক পরীক্ষায় পঞ্চখণ্ড হরগোবিন্দ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে অংশগ্রহণ করে প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন। অতঃপর কলকাতার রিপন কলেজ থেকে যুক্তিবিদ্যায় লেটারসহ প্রথম বিভাগে উত্তীর্ণ হন। কলকাতা সংস্কৃত কলেজ থেকে দর্শনশাস্ত্রে স্নাতক সম্পন্ন করেন ১৯২৯ সালে। স্নাতকোত্তর – কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, ১৯৩১-এ। ১৯৩৪ সালে উচ্চতর গবেষণার জন্য তিনি বৃত্তি নিয়ে চলে যান ভারতের মহারাষ্ট্র প্রদেশে অবস্থিত অমলনারের বিশ্বখ্যাত দর্শন গবেষণা কেন্দ্র Pratap Centre of Philosophy-তে। ১৯৪৪ সালে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পিএইচডি ডিগ্রি লাভ করেন।

দর্শনই যার জীবন-ধ্যান-জ্ঞান তিনি কখনোই এর বাইরে থাকতে পারেন নি। দার্শনিক হিসেবে দেশে-বিদেশে ছিলেন সমান সমাদৃত। তাঁর মানবতাবাদী দর্শনের তাত্ত্বিক জ্ঞানের স্বীকৃতি স্বরূপ তাঁর সম্মানে যুক্তরাষ্ট্রে ১৯৬৭ সালের ২৬শে মে স্থাপিত হয় দি গোবিন্দ দেব ফাউন্ডেশন ফর ওয়ার্ল্ড ব্রাদারহুড। খুব অল্প সময়ের মধ্যেই তিনি জীবনবাদী দর্শনের একজন পণ্ডিত বক্তা হিসেবে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেন।

জি সি দেবের বাসায় তাঁর পালিত মেয়ে রোকেয়া বেগম ও তাঁর স্বামী থাকতেন। ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ রাতে তাঁর বাড়িতে আক্রমণ চালানো হয়। ভোরের দিকে দরজা ভেঙে পাকিস্তানী সেনারা ঘরে প্রবেশ করে ব্রাশ ফায়ার করে গোবিন্দ চন্দ্র দেব ও রোকেয়া বেগমের স্বামীকে হত্যা করে। স্বাধীনতাঁর প্রথম প্রহরে প্রাণ হারালো একজন নিবেদিতপ্রাণ মানবপ্রেমিক, একজন স্বাধীনচেতা বাঙালি।