Martyred Intellectuals | অধ্যাপক গিয়াসউদ্দিন আহমদ
886
page-template,page-template-full_width,page-template-full_width-php,page,page-id-886,page-child,parent-pageid-646,ajax_fade,page_not_loaded,,select-theme-ver-4.6,wpb-js-composer js-comp-ver-5.5.5,vc_responsive

অধ্যাপক গিয়াসউদ্দিন আহমদ

জন্ম – ১১ অগাস্ট, ১৯৩৩

“মানবতা, জ্ঞান আর দেশপ্রেমে যিনি আকাশের কাছাকাছি”

শহীদ অধ্যাপক গিয়াসউদ্দিন ১৯৩৩ সালে জন্মগ্রহণ করেন। ঢাকার স্কুল ফাইনাল ও আই.এ.-তে দশম ও অষ্টম স্থান অধিকার করেছিলেন। দুর্দান্ত রেজাল্ট করেও পড়তে চেয়েছিলেন ইতিহাসে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইতিহাস বিভাগ থেকে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর শিক্ষা সম্পন্ন করে ১৯৫৮ সালে একই বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগদান করেন। পেয়েছিলেন কমনওয়েলথ স্কলারশিপ। কিন্তু তিনি তা না নিয়ে ১৯৬৪ সালে লন্ডন স্কুল অব ইকনমিক্স-এ অধ্যয়ন করে ১৯৬৭ সালে দেশে ফিরে আসেন।

তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের জননন্দিত শিক্ষক ছিলেন। তাঁর ইতিহাস ক্লাস করার জন্য বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্র তো বটেই, বিভিন্ন জায়গা থেকে লোকজন আসতো। গণতান্ত্রিক আন্দোলনের তৎকালীন বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচিতে তিনি প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সক্রিয় অংশগ্রহণ করেন। ৫২-এর ভাষা আন্দোলন, ঊনসত্তরের গণ-অভ্যুত্থানে তিনি ছিলেন সবার আগের পরিচিত মুখ। একাত্তরের তুমুল যুদ্ধের সময় তিনি ছুটে বেড়িয়েছেন গোপনে। কোন মুক্তিযোদ্ধা আহত, কার ঘরে খাবার নেই,  কাকে অস্ত্র পাঠাতে হবে- এমন সব খবর নিয়ে ব্যবস্থা করতেন যার যেটা প্রয়োজন।

১৪ ডিসেম্বর পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর দোসর আল-বদর বাহিনী তাঁকে মহসিন হল থেকে ধরে নিয়ে যায়। ৪ জানুয়ারি, ১৯৭২ মিরপুর বধ্যভূমিতে তাঁর মৃতদেহ পাওয়া যায়।

স্বাধীন বাংলা হারালো অসম্ভব মানবিক এক মানুষকে।